সেচ্ছাসেবী সংগঠন সোনালী সংসদের সেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি

সেচ্ছাসেবী সংগঠন সোনালী সংসদের ওরা রক্তের ফেরিওয়াল

সেচ্ছাসেবী সংগঠন সোনালী সংসদের ওরা রক্তের ফেরিওয়ালা সেলিম রেজা, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ 'নিরাপদ হোক রক্তদান/আমার রক্তে বাঁচুক প্রাণ'-এই স্লোগানকে ধারণ করে রক্ত দানের উদ্দেশ্য নিয়ে রক্ত ফেরি করতে ২০১৯ সালে যাত্রা শুরু করে স্বেচ্ছাসেবকদের সংগঠন খানপুর ইউনিয়ন সোনালী সংসদ। ১ বছরের মধ্যে তা উপজেলা ছড়িয়ে গেছে জেলায়। তাদের প্রায় ৫ শত তালিকাভুক্ত সদস্য। এ পর্যন্ত প্রায় ২ হাজার মানুষের ফ্রি রক্ত গ্রুপ নির্ণয় করেছেন তারা। নতুন রক্তদাতার সন্ধানে সংগঠনটি বিভিন্ন প্রান্তে আয়োজন করে ফ্রি রক্ত গ্রুপিং ক্যাম্পেইনসহ নানামুখী কার্যক্রম। এখন গর্ভবতী মায়েদের মাঝে রক্ত সম্পর্কিত সচেতনতা তৈরি করতে উদ্যোগী হয়েছে সংগঠনটি। স্থানীয় এনজিও মৈত্রী কর্মকর্তা ও সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন, '২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সিজার অপারেশনের জন্য এ নেগেটিভ রক্তের প্রয়োজন হয়। সেই রক্তের জন্য হন্যে হয়ে রক্তদাতা খুঁজতে দেখি। ব্লাড ব্যাংক আর মেডিকেলগুলোতে কোথাও খুঁজে পাচ্ছিল না দুর্লভ গ্রুপের এই রক্ত। এদিকে ডাক্তার জানালেন, দ্রুত সিজার করতে না পারলে বড় ধরনের সমস্যা হয়ে যেতে পারে। এরপর দিশেহারা হয়ে সবাইকে ফোন দেওয়া শুরু করলাম। রক্তের প্রয়োজনীয়তাটি পোস্ট করলাম ফেসবুকেও। তখন আমার এক বন্ধু এ ধরনের সেবামূলক কাজের সঙ্গে জড়িত থাকায় মাত্র আধা ঘণ্টার মধ্যে এক ব্যাগ এ নেগেটিভ রক্তদাতা খুঁজে দেয়।' তিনি আরও বলেন, 'দ্রুত রক্তাদাতা খুঁজে পেয়ে কিছুটা অবাকই হয়েছিলাম। সেদিন প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, আজ থেকে রক্তের প্রয়োজনে মানুষকে সাধ্যমতো সহযোগিতা করব। সে অনুযায়ী কাজ করতে গিয়ে স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। আমি চিন্তা করতে থাকি কীভাবে দেশের সব ভলান্টিয়ার ও রক্তদাতাদের একটি প্লাটফরমের ভেতর নিয়ে আসা যায়। যাতে দেশের যে কোনো প্রান্তে খুব দ্রুত রক্তদাতা খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়। এই চিন্তা থেকে বন্ধু বান্ধব ও এলাকার বড় ও ছোট ভাইদের সাথে যোগাযোগ করি সবার আগ্রহ ও মতামতের ভিত্তিতে ২০১৯ সালের ১৬ ই ডিসেম্বর যাত্রা শুরু করে সেচ্ছাসেবী সংগঠন খানপুর ইউনিয়ন সোনালী সংসদ । সাংগঠনিক সমন্বয়কারী আব্দুর রউফ জানান, 'গত ১ বছরে আমাদের সঙ্গে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন অনেক সাদা মনের মানুষ ও দেশজুড়ে ছড়িয়ে থাকা অসংখ্য স্বেচ্ছাসেবক। যাদের সহযোগিতা ছাড়া আমাদের কাজগুলা চালিয়ে যাওয়া একেবারেই সম্ভব ছিল না।' প্রায় ২ হাজার মানষের ফ্রি রক্ত গ্রুপ নির্ণয় করা হয়েছে। রক্তদান ও গর্ভবতী মায়েদের সচেতনতায় অসংখ্য ব্যানার ও ফেস্টুন প্রচার করছে তারা। রক্তদান কার্যক্রমকে উৎসাহিত করতে প্রতি বছর রক্তদাতা ও স্বেচ্ছাসবক এবং সংগঠনকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সেচ্ছাসেবী সংগঠন সোনালী সংসদ এর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সর্ম্পকে জানতে চাইলে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম রুপম বলেন, 'রক্তের অভাবে যাতে একটি মানুষও মারা না যায় সেই স্বপ্ন দেখি আমরা। যতদিন রক্তের প্রয়োজন হবে ততদিন চলবে আমাদের কার্যক্রম। সেচ্ছাসেবী সংগঠন সোনালী সংসদ এর প্রচার সম্পাদক ও জাতীয় দৈনিক পুনরুত্থান প্রত্রিকার শেরপুর উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ সেলিম রেজা বলেন, তরুণরাই পাল্টাবে সমাজ। উদ্যোমী কিছু তরুনদের এ উদ্যোগ সমাজ পরিবর্তনের চেষ্টা বলে মনে করছি। জরুরী রক্তের প্রয়োজনে আমাদের সাথে যোগাযোগের জন্য "খানপুর ইউনিয়ন সোনালী সংসদ" নামে গ্রুপ খোলা হয়েছে। এছাড়াও সংগঠনের সদস্যদের সাথে যোগাযোগের জন্য পৃথক তালিকা রয়েছে। সহজেই রক্তদাতা এবং সদস্য হিসাবে যে কেউ রেজিস্টেশন করতে পারবেন।

 

Comments: