গোলাপি কাঞ্জিভরম, শাঁখা-পলা-সিঁদুরে দক্ষিণেশ্বরে নুসরত, ফ্রেমে যশ ও মদন

Publish: 4 days ago ( 1061)

শোবিজ ডেস্ক

অভিনেত্রী-সাংসদ নুসরত জাহান এবং যশ দাশগুপ্তের বিশেষ সম্পর্ক নিয়ে যখন টলিপাড়া উত্তাল, তখন প্রকাশ্যে এল আরও এক একচমকপ্রদ তথ্য। যে তথ্য বলছে, ‘যশরত’ (যশ-নুসরত) দক্ষিণেশ্বরের কালীমন্দিরে মন্দিরে গিয়েছিলেন। তাঁদের সঙ্গী ছিলেন তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র।

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা ভিডিয়োতে নুসরতকে গোলাপি কাঞ্জিভরম শাড়িতে দেখা যাচ্ছে। খোলা একঢাল চুল। হাতে শাখা-পলা। সিঁথিতে সিঁদুর। তাঁর একদিকে দাঁড়িয়ে যশ। মাথায় টুপি, মুখে মাস্ক, টি শার্ট আর জিন্‌সের ট্রাউজার্সে। অন্য পাশে গাঢ় নীল বন্‌ধ-গলা পরিহিত মদন। ছবির তারিখ বলছে, ওই দৃশ্য ডিসেম্বরের মাঝামাঝি। যে সূত্রে প্রশ্ন উঠছে, তা হলে কি কালীমন্দিরে মন্দিরে যাওয়ার পরেই যশ এবং নুসরতের সোশ্যাল মিডিয়ায় মরুভূমির পটভূমিকায় ছবি দেখা গিয়েছে। অজমের শরিফের দরগার বাইরেও দু’জনের ছবি দেখা গিয়েছে।

 

তবে দক্ষিণেশ্বরের ভবতারিণী মন্দিরে যে ফ্রেম দেখা গিয়েছে, তেমন ফ্রেম এর আগে বিশেষ দেখা যায়নি। ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, নুসরতের সঙ্গে মদনের অন্তরঙ্গ আলাপচারিতা হচ্ছে। কী কথা তাহার সাথে? ভিডিয়োতে তা বোঝা না যায়নি। তবে দেখা গিয়েছে, হাসিমুখে একে অপরের সঙ্গে হাত মেলালেন। কেন গিয়েছিলেন যশ-নুসরত দক্ষিণেশ্বরের মন্দিরে? মদন কি তাঁদের সঙ্গে গিয়েছিলেন? নাকি মন্দিরে গিয়েই দেখা হয়ে গেল দু’পক্ষের? কী হল সেখানে? সে বিষয়ে কেউ কোথাও মুখ খোলেননি। মদনের ফোন নিরন্তর বেজে গিয়েছে। আনন্দবাজার ডিজিটালেরই প্রথম নজরে আসে ওই ছবি আর ভিডিয়ো। তবে তৃণমূলের একাংশ জানাচ্ছে, মদন আগে কামারহাটির বিধায়ক ছিলেন। দক্ষিণেশ্বর কালীমন্দির কামারহাটি এলাকার কাছাকাছি। সেই কারণেও মদন সেখানে গিয়ে থাকতে পারেন।

 

রাজস্থানে বর্ষশেষে ছুটি কাটানোর সময় থেকেই নেটাগরিকদের নজরে পড়েছেন যশ-নুসরত। রাজস্থান থেকে ফিরে আসার পরে মুখে কুলুপ এঁটেছেন যশ। সোশ্যাল মিডিয়াতেও তিনি নীরব। শুধু বলেছেন, প্রতি বছরের শেষেই তিনি একটি রোড ট্রিপ করে থাকেন। এ বারেও গিয়েছিলেন। এইপর্যন্তই। কীসের এত লুকোচুরি, জানে না কেউ। নুসরত অবশ্য ছবি এবং স্টোরি পোস্ট করছেন। একটি স্টোরিতে তিনি লিখেছেন, তিনি জানেন নিজের টেবিলে কী খাবার এনেছেন। তাই সে খাবার একা খেতেও কোনও অসুবিধা নেই তাঁর। অর্থাৎ, নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থাকার কথাই আকারে-ইঙ্গিতে সকলকে জানিয়ে দিয়েছেন নুসরত। যে যা-ই বলুক, তিনি যে কোনও ব্যাপারেই বিচলিত নন, তা বার বার জানাচ্ছেন নুসরত।

Comments: