সোনারগাঁওয়ে পুনর্মীলনী অনুষ্ঠান পালন করল এসএসসি ‘৯৪ শিক্ষার্থীরা

“এসো মিলি, ডানা বিহীন ভালবাসায়—আহ্ কি ভালোই না লাগে বন্ধুর হাত”
এই শ্লোগানে সোনারগাঁওয়ে পুনর্মীলনী অনুষ্ঠান পালন করল এসএসসি ‘৯৪ শিক্ষার্থীরা

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খলভাবে আয়োজনের মাধ্যমে মোগরাপাড়া এইচ.জি.জি.এস স্মৃতি বিদ্যায়তনের ১৯৯৪ সালের এসএসসি শিক্ষার্থীরা পালন করল পূণর্মিলনী অনুষ্ঠান ২০২১। ৮ জানুয়ারী (শুক্রবার) নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও পৌরসভায় অবস্থিত ড. এম.এ সাত্তার কেন্দ্রীয় গণবিদ্যালয় কেন্দে্র (বেইস)—এ সকাল সাড়ে ১০টায় লালগালিচায় সহ—কর্মীদের স্ত্রী—স্বামী ও সন্তানদের অভ্যর্থনার মাধ্যমে শুরু হয়  পূণর্মিলনীর এ আনুষ্ঠান। প্রিয় বন্ধুদের আহবানে সাড়া দিয়ে দুরদুরান্ত থেকে ছুটে এসেছে তাদের ছোটবেলার ভালবাসার বন্ধুদেরকে এক নজর দেখতে। সোনারগাঁওয়ে এসএসসি ‘৯৪ সালের শিক্ষার্থীদের এই পুনর্মীলনী অনুষ্ঠানকে ঘিরে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক আলোড়ন। 

অনুষ্ঠানের প্রথম ধাপে, অর্থাৎ সকাল ১০.৩০টা থেকে নিজ দায়িত্বে চলে ফটোসেশন, এ জন্য একটি মনোরম দৃষ্টিনন্দন একটি ব্যানার সাটানো হয়। যাতে বন্ধুরা ও তার পরিবারসহ সবাই যে যার মতো করে ছবি তুলে তা স্মৃতি স্বরূপ রাখতে পারে।অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় ধাপে, সাড়ে ১১টায় পরিচিতি পর্ব, এরপর পরই শুরু হয় চা—কফির আড্ডা, স্মৃতিচারণ। দুপুর একটা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলে দুপুরের খাবার—দাবার, বন্ধুদের শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেয়া হয় ৩টার পর থেকে। বন্ধুদের স্ত্রী, বান্ধবি ও সকল সন্তানদের উপহার হিসেবে প্রতিজনকে একটি করে মগ দেয়া হয় বিকাল পৌনে ৪টার দিকে। তারপর উপদেষ্টা পরিচিতির মধ্যে বক্তব্য ও সংবর্ধনা দেয়া হয় প্রধান উপদেষ্টা পিরোজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম, আনিকা ইন্টারন্যাশনালের স্বাত্ত্বাধিকার আশরাফ উদ্দিন ও কালের কন্ঠের বিজ্ঞাপন বিভাগের এজিএম মঞ্জুর হোসাইন। এসময় সকল বান্ধবিদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নাসিমা ইসলাম।সকল বন্ধু ও বন্ধুদের স্ত্রী, বান্ধবি ও বান্ধাবিদের স্বামী ও সন্তানসহ প্রায় ৪০০ জনের উপস্থিতিতে মিলন মেলা আর স্মৃতিচারণে মুখরিত হয়ে উঠে কেন্দ্রীয় এম সাত্তার গণবিদ্যালয় কেন্দ্র (বেইস)। সকল বান্ধবি, বন্ধুদের স্ত্রীদের জন্য উপহার হিসেবে ছিল একটি করে জামদানি শাড়ি।এছাড়া, র‌্যাফেল ড্র’তে ছিল ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি, মাইক্রোওভেন, ডিনারসেট, আয়রন, মোবাইল সেট সহ ১০ টি উপহার। এছাড়া, সারা সময় জুড়ে ছিল কফি পানের ব্যবস্থা।অনুষ্ঠানের শেষ প্রান্তে এসে, যে সকল বন্ধু,বান্ধবি ও শিক্ষকরা ইহকালের মায়া ত্যাগ করে পরবাসী হয়েছেন তাদের আত্মার শান্তি কামনা ও জীবনের গুণাহ মাফের উদ্দেশ্যে এক মিনিট নিরবতার সাথে বিসমিল্লাহ’র সাথে সুরা ইখলাস, নবীজী সনে দরুদ সালাম ও সুরা ফাতিহা পাঠ করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তব্যের এক পর্যায় ‘রাইজিং ৯৪ ফাউন্ডেশন’ নামে ফাউন্ডেশন গঠনের কথা পূণঃ ব্যক্ত করেন প্রধান উপদেষ্টা উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম।পরে পূণরায় ফটোসেশন ও কফিপানের মাধ্যমে আড্ডা দিতে দিতে ধীরে ধীরে শেষ প্রান্তে এসে পৌছায় দীর্ঘ ২৬ বছর পর একসাথে হওয়া মোগরাপাড়া এইচ.জি.জি.এস স্মৃতি বিদ্যায়তনের ‘৯৪ সালের শিক্ষর্থীদের পূণর্মিলনী অনুষ্ঠান ২০২১ এর কার্যক্রম। একক নৃত্বের মাধ্য দিয়ে শেষ হয় প্রিয় বন্ধুদের পুনর্মীলনী এ অনুষ্ঠানটি।

 

Comments: