গাইবান্ধা জেলা জাতীয় শ্রকলীগের কমিটি বিলুপ্ত,. দাবী কমিটি'র নেতাকর্মীর

জাতীয় শ্রমিকলীগ এর কেন্দ্রীয় কমিটির জা. শ্র.লী /কে.ক/সার্কুলার- ২০২২/ ০৩৭ স্মারক মতে গত ২ অক্টোবর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নুর কুতুব আলম মান্নান ও  সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব একেএম আযম খসরু স্বাক্ষরিত পত্রের নির্দেশনা অনুযায়ী গাইবান্ধা জেলাসহ দেশের বেস কিছু ইউনিট কমিটি বিলুপ্ত হয়েছে বলে জানান জেলা জাতীয় শ্রমিকলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতা কর্মীগণ।

 

নানা আলোচনা ও সমালোচনা পদ বানিজ্য সহ বিএনপির নেতাকর্মীদের জাতীয় শ্রমিকলীগের নেতা বানানো এবং কেন্দ্রীয় নির্দেশণা অনুযায়ী সংগঠনের গতিশীলতাকে পকেট বন্দি করে রাখায় অবশেষে অটো বিলুপ্ত হয়ে জাতীয় শ্রমিকলীগের গাইবান্ধা জেলা শাখার চলমান কমিটি। তবে উক্ত কেন্দ্রীয় নির্দেশনা পত্রের আলোকে গত ২৯ অক্টোবর শনিবার সকালে গাইবান্ধা জেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে জেলা শাখার বর্ধিত সভা হলেও নির্ধারণ হয়নি সম্মেলনের দিন তারিখ বা কেন্দ্রীয় পাঠানো হয়নি সম্মেলন প্রস্তুতির আবেদন।  

 

জাতীয় শ্রমিকলীগ গাইবান্ধা জেলা শাখার কার্যকারি সভাপতি ময়নুল হক বিএ জানান,কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী গাইবান্ধা জেলা জাতীয় শ্রমিকলীগের কমিটি অটো বাতিল হয়েছে। আমরা যারা কমিটিতে ছিলাম তারা সাবেক হয়ে গেছি। কেন্দ্রীয় কমিটি'র সংগ্রামী নেতৃবৃন্দ সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত নিয়ে সংগঠনকে গতিশীল করার জন্য এখন দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি অথবা আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করবেন।  তিনি আরো বলেন, গত ২ অক্টোবর কেন্দ্রীয় দলীয় নির্দেশনাপত্র অনুযায়ী সম্মেলন প্রস্তুতি তারিখের আবেদন না করতে পাড়ায় ১৬ নভেম্বরের হতে গাইবান্ধা জেলা কমিটির বিলুপ্ত হয়েছে। সেহেতু গাইবান্ধা জেলা শাখার অর্ন্তভুক্ত সকল উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিট কমিটি গঠন বা অনুমোদনের করার কোন ক্ষমতা বর্তমান জেলা কমিটির নেই। তাই সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনায় কমিটির বা কারো সাথে কোন আর্থিক লেনদেন না করার জন্য আহবান জানান সাবেক এ জাতীয় শ্রমিকলীগ নেতা। 

পলাশবাড়ী উপজেলা জাতীয় শ্রমিকলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা সদস্য মাহমুদুজ্জামান প্রান্ত বলেন,গত ২০১৪ সালে ১৬ মার্চ আগামী তিন বছরের জন্য ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ন হওয়ার ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও জেলা শাখার সম্মেলনের কোন উদ্যোগ গ্রহন করা হয়নি।কেন্দ্রীয় নির্দেশনার আলোকে অনেকদিন পর জাতীয় শ্রমিকলীগ গাইবান্ধা জেলা শাখা পদ আর কমিটি বানিজ্যের হাত হতে রক্ষা পেলো। সংগঠনটি এ জেলা শাখাটি বন্দি দশা হতে মুক্তি পেলো।গাইবান্ধা জেলার জাতীয় শ্রমিকলীগের নেতাকর্মীরা কেন্দ্রীয় নির্দেশনার প্রতি সমর্থন জানিয়ে কমিটি বিলুপ্ত মেনে নিজেদের সাবেক হিসাবে পরিচয় দিচ্ছেন। তিনি আরো জানান, দলীয় নেতাকর্মীরা সংগঠনটির গতিশীল করতে পরীক্ষিত ও পরিশ্রমি নেতৃত্বের হাতে কমিটি দেওয়ার দাবী জানিয়েছেন। 

 

তবে এ বিষয়ে জাতীয় শ্রমিকলীগের গাইবান্ধা জেলার শাখার সভাপতি খাইরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সুধাংশু বাবু 'র কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।  এ বিষয়ে জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব একেএম আযম খসরু মুঠোফোনে জানান,বিগত ২ অক্টোবরের প্রেরিত পত্রে আলোকে সকল মেয়াদ উর্ত্তীন কমিটির সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত।

 

উল্লেখ্য, জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির দলীয় পত্রে পাওয়া তথ্য হুবাহুব তুলে ধরা হলো, বরাবর,সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক / আহবায়ক / সদস্য সচিব ,জেলা/মহানগর/অঞ্চল বৈদেশিক শাখা/যুব কমিটি। বিষয়: জাতীয় শ্রমিকলীগের মেয়াদ উত্তীর্ণ শাখা কমিটি সমূহের সম্মেলন প্রসঙ্গে। সংগ্রামী সালাম ও শুভেচ্ছান্তে আপনাদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জানানো যাচ্ছে যে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন জাতীয় শ্রমিকলীগের অধিকাংশ শাখা কমিটির মেয়াদ ইতিমধ্যেই উত্তীর্ণ হয়ে গেছে। জাতীয় শ্রমিকলীগের পক্ষ থেকে সার্কুলার জারি করে সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারণ পূর্বক সম্মেলন করার জন্য বারবার অনুরোধ করা সত্তেও দুংখজনক ভাবে তা প্রতিপালিত হয় নাই।

 

এমতাবস্থায় যে সকল শাখার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পরও এখনো সম্মেলনের আবেদন করেন নাই সেই সকল শাখাসমূহকে জাতীয় শ্রমিক লীগের গঠনতন্ত্রের ১৩ নং ধারা অনুসরণ পূর্বক কাউন্সিলার তালিকা তৈরী করে আগামী ৪৫ (পঁয়তাল্লিশ) দিনের মধ্যে সম্মেলনের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করে জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় দপ্তরে প্রেরণ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো। অন্যথায় উক্ত কমিটি বাতিল বলে গণ্য হবে। অত্র সার্কুলার/পত্র জারির পর মেয়াদ উত্তীর্ণ ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণসহ জেলা/মহানগর/আঞ্চলিক/বৈদেশিক শাখার আওতাধীন কোন শাখা/উপ-শাখা কমিটি ভাংগা-গড়া যাবে না। চলমান কমিটি দিয়েই কাউন্সিল সম্পন্ন করতে নির্দেশ প্রদান করা হয়। পত্রে আরো জানানো হয়, যে সকল কমিটি ইতিমধ্যে সম্মেলনের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির নিকট আবেদন করেছে সে সকল কমিটি এই নির্দেশনার আওতামুক্ত থাকবে।

 

পুনরুত্থান/আরিফা/এসআর/দয়া

Comments: