চাতলাপুর হয়ে আরও ১১ হাজার ৭২৫ কেজি ইলিশ ভারতে

এক সপ্তাহে মৌলভীবাজার কুলাউড়া উপজেলার চাতলাপুর স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে ভারতের ত্রিপুরার কৈলাশহরে ১১ হাজার ৭২৫ কেজি ইলিশ রফতানি হয়েছে।  

 

বাংলাদেশি আমদানি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান জারা এন্টারপ্রাইজ সূত্রে জানা যায়, ৯ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বেলা দেড়টায় তাদের জারা এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে ভারতের কৈলাশহরের ব্যবসায়ী আব্দুল মুহিত প্রতি কেজি ৮ ডলার মূল্যে বাংলাদেশি ১৫ লাখ ১৫ হাজার ৮শ’ টাকায় ২ হাজার কেজি বাংলাদেশি ইলিশ রফতানি করেছেন।

 

এরপর ১২ সেপ্টেম্বর সোমবার একই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ভারতীয় ব্যবসায়ী আব্দুল মুহিত আরও ২ হাজার কেজি ইলিশ রফতানি করেছেন। একই দিন বাংলাদেশি আমদানি-রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান বিডিএস করপোরেশন চাতলাপুর স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে ভারতের কৈলাশহরের মনিকা এন্টারপ্রাইজের কাছে ২ হাজার ৯৫০ কেজি ইলিশ রফতানি করেছেন।

 

অন্যদিকে শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর দুপুর আড়াইটায় আবার বিডিএস করপোরেশন ভারতের ত্রিপুরার কৈলাশহরের মনিকা এন্টারপ্রাইজের কাছে আরও ৪ হাজার ৭২৫ কেজি ইলিশ মাছ রফতানি করেছে। সব মিলিয়ে গত এক সপ্তাহে চাতলাপুর স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে ত্রিপুরার কৈলাশহরে মোট ১১ হাজার ৬৭৫ কেজি ইলিশ মাছ রফতানি করা হয়।

 

জারা এন্টারপ্রাইজের পরিচালক জসিম উদ্দিন ও মশীক মোল্লা এবং বিডিএস করপোরেশনের প্রতিনিধি সোহেল চৌধুরী গত এক সপ্তাহে চাতলাপুর স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে ত্রিপুরার কৈলাশহরে ১১ হাজার ৬৭৫ কেজি ইলিশ মাছ রফতানি সত্যতা নিশ্চিত করেন।  

 

তারা আরও বলেন, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এ পথে তারা আরও ইলিশ মাছ রফতানি সম্ভাবনা রয়েছে। চাতলাপুর স্থল শুল্ক স্টেশনের পরিদর্শক বাবলু সিনহা এক সপ্তাহে ১১ হাজার কেজির অধিক ইলিশ রফতানির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

 

পুনরুত্থান / দয়া /এসপি

Comments: