উচ্চশিক্ষা নিয়ে বাবার সঙ্গে দ্বন্দ্ব, মিশরে আত্মঘাতী মেয়ে

বাবা বেসরকারি মেডিকেল কলেজে পড়তে দিতে চাননি—এই অভিমানে আত্মহত্যা করেছেন এক তরুণী। শনিবার মিসরের রাজধানী কায়রোতে ঘটেছে এ ঘটনা।

 

মিসরের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর বরাত দিয়ে আমিরাতভিত্তিক দৈনিক গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৭ বছর বয়সী ওই তরুণীর স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়ার। কিন্তু ভালো ফলাফল না করতে পারায় সরকারি মেডিকেল কলেজে পড়ার সুযোগ পাননি তিনি।

 

ফলে নিজের ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন সফল করতে বেসরকারি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না তার সামনে; কিন্তু এক্ষেত্রে বেঁকে বসেন তরুণীর বাবা। মেয়ে তিনি জানিয়ে দেন— বেসরকারি মেডিকেল কলেজে পড়ার খরচ তিনি নির্বাহ করতে পারবেন না।

 

স্থানীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, ওই তরুণীর বাবা বেশ অবস্থাপন্ন ব্যক্তি। বাবার আপত্তির পর কয়েকদিন ধরে ওই তরুণী তার বাবাকে এ ব্যাপারে রাজি করাতে চেষ্টা করেন। কিন্তু তার সেসব চেষ্টার সবই ব্যর্থ হয়।

 

অবশেষে শনিবার বাবার অনুপস্থিতিতে তার অফিসে যান তরুণী এবং তার ডেস্কের ড্রয়ারে থেকে লাইসেন্স করা পিস্তল বের করে নিজের মাথায় গুলি চালান। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। এ ঘটনায় মিসরের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোনো পদক্ষেপ নিয়েছে কিনা— এখনও জানা যায়নি।

 

পুনরুত্থান /টিএম

Comments: