মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডে, ফাডনবীশ ডেপুটি

ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বিদ্রোহী শিবসেনা নেতা একনাথ শিন্ডে। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় এই রাজ্যটির নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তিনি। অন্যদিকে সাবেক মুখ্যমন্ত্রী দেভেন্দ্র ফাডনবীশ উপমুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

 

গত নয় দিন ধরে হিন্দুত্ববাদী দল শিবসেনা দলের মধ্যে বিদ্রোহ চলার পরে বুধবার রাতে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন উদ্ধব ঠাকরে। এরপর থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত বিজেপির দলীয় সূত্রগুলো থেকে জানানো হচ্ছিল, সাবেক মুখ্যমন্ত্রী দেভেন্দ্র ফাডনবীশই ওই পদে শপথ নেবেন।তু বৃহস্পতিবার বিকেল নাগাদ ফাডনবীশ নিজেই এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা করেন যে, একনাথ শিন্ডেই মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন। এর ঘণ্টা তিনেক পরে অবশ্য তাকেই একনাথ শিন্ডের ডেপুটি হিসেবে শপথ নিতে দেখা যায়।

 

একনাথ শিন্ডে দীর্ঘদিন মহারাষ্ট্র রাজ্যে মন্ত্রী ও শিবসেনা বিধায়ক ছিলেন। গত ১০ দিন ধরে এ রাজ্যে যে রাজনৈতিক টানাপোড়েন চলছিল - তাতে সদ্য বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছিলেন শিন্ডে। মোট ৩৬ জন শিবসেনা বিধায়ককে নিজের পক্ষে টেনে নেন তিনি এবং তাদেরকে প্রথম গুজরাটে ও পরে আসামের গুয়াহাটিতে বিলাসবহুল হোটেলে নিয়ে গিয়ে রাখা হয়।

 

এরপর মহারাষ্ট্রের রাজ্যপালের কাছে একটি চিঠি দিয়ে দেভেন্দ্র ফাডনবীশ জানান, ৩৬ জন বিধায়ক মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেকে আর সমর্থন করছেন না। সেই চিঠির ভিত্তিতেই রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারি বিধানসভায় শক্তি পরীক্ষার নির্দেশ দেন। এরপর বুধবার রাতে এক ফেসবুক লাইভে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন উদ্ধব ঠাকরে।সংবাদদাতারা বলছেন, বিজেপির দলীয় সূত্রগুলো থেকে একাধিকবার বলা হলেও শেষ পর্যন্ত ফাডনবীশ মুখ্যমন্ত্রী না হওয়ায় খানিকটা বিস্ময়ের সৃষ্টি হয়।

 

মনে করা হচ্ছিল যে, রাজ্য বিধানসভায় বিজেপির ১০৬ জন বিধায়ক আছেন তাই তারাই একক বৃহত্তম দল - এবং তাদেরই কেউ মুখ্যমন্ত্রী হবেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে দেভেন্দ্র ফাডনবীশ বলেন, আমি সরকারের বাইরে থাকব এবং এটি যেন সুষ্ঠুভাবে চলে তা নিশ্চিত করব। সেসময় তিনি আরও জানান, সন্ধ্যার পরে শুধুমাত্র একনাথ শিন্ডে শপথ নেবেন।

 

তবে এই ঘটনার তিন ঘণ্টা পর দেভেন্দ্র ফাডনবীশকে একনাথ শেন্ডের ডেপুটি হিসেবে শপথ নিতে দেখা যায়। এর আগে অবশ্য বিজেপির প্রধান জেপি নাড্ডা বলেন, ‘তাকে (ফাডনবীশ) অবশ্যই উপমুখ্যমন্ত্রী হতে হবে... আমি ব্যক্তিগতভাবে তাকে অনুরোধ করব।’

 

তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, এই অপ্রত্যাশিত ঘটনার পেছনে সম্ভাব্য কারণ হলো: সুপ্রিম কোর্টে শিবসেনার একটি অংশ, অর্থাৎ উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বাধীন অংশটি একটি মামলা করেছে। সেখানে বিদ্রোহীদের ১৬ বিধায়ককে বিধানসভা থেকে বরখাস্ত করার দাবি করা হয়েছে।আগামী ১১ জুলাই সেই মামলার রায় হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে যদি এই ১৬জন বিধায়কের পদ খারিজ হয়ে যায় - তাহলে তারা আর বিধানসভায় ভোট দিতে পারবেন না এবং সেক্ষেত্রে নবগঠিত সরকার পড়ে যাবে।

 

পুনরুত্থান/এসআর/মিজান/সোহান

Daily Punorutthan

Comments: