শ্রীলঙ্কার অর্থনীতি গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি নতুন প্রধানমন্ত্রীর

নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর দেশের অর্থনীতি গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রনিল বিক্রমাসিংহে। এর আগে জনগণকে ধৈর্য ধরতে বলেছেন তিনি। শুক্রবার (১৩ মে) কলম্বো পেজ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়। প্রতিবেদনে বলা হয়, অর্থনীতি গড়ে তোলার পাশাপাশি জনগণের মনে স্বস্তি আনতেও আন্তরিকভাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বিক্রমাসিংহে।

দেশের অর্থনীতে ফিরিয়ে আনতে নিজের স্টাফদের ছুটির কথা না ভেবে কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। অর্থাৎ, ‘ভেষক পোয়া দিবস’সহ সপ্তাহে আসন্ন সব ছুটি বাতিল হয়ে যাবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। বিক্রমাসিংহে জানিয়েছেন, আগামী সোমবার (১৬ মে) জ্বালানি, বিদ্যুৎ, গ্যাস, খাদ্যপণ্য, সার ও ওষুধসহ অত্যাবশ্যকীয় সেবা ও পণ্য সংক্রান্ত দেশের বাস্তব পরিস্থিতির ওপর একটি প্রতিবেদন জনগণের সামনে উপস্থাপন করা হবে। তিনি বলেন, কোনো কিছুর সমাধান হওয়ার আগে দেশের মানুষের সত্য জানতে হবে।

 

বৃহস্পতিবার (১২ মে) শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন রনিল বিক্রমাসিংহে। শপথ নেওয়ার পর ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে সাক্ষাৎকার দেন তিনি। বলেন, দেশের অর্থনৈতিক সংকট ভালো হবে। তবে এর আগে আমাদের খারাপ পরিস্থিতি দেখতে হবে। মানুষ যাতে দিনে তিনবেলা খাবার পায়; দেশের এমন একটি অর্থনীতি গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন লঙ্কান প্রধানমন্ত্রী। অর্থনৈতিক সংকট থেকে শ্রীলঙ্কাকে পুনরুদ্ধারের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে তিনি আর্থিক সহায়তাও আবেদন জানান।

 

বিক্রমাসিংহে জানান, তিনি ইতোমধ্যে ভারত এবং জাপানের মতো দেশের সহায়তার জন্য আলোচনা করেছেন। তিনি বলেন, আমরা দেশে দুর্ভিক্ষ হতে দেব না, আমরা সাহায্য খুঁজে পাবো। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাক্ষাৎকারে রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভকারীদের অনুভূতির সঙ্গে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী একমত বলে জানিয়েছেন। জনগণের প্রতি তার কী বার্তা থাকবে জানতে চাওয়া হয়। উত্তরে তিনি বলেন, ধৈর্য ধরুন, আমি সবকিছু ফিরিয়ে আনব।

Comments: