‘শিল্প সাহিত্য নিয়ে তরুণ প্রজন্মের ভাবনাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে’

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, শিল্প সাহিত্য নিয়ে তরুণ প্রজন্মের ভাবনাকে অগ্রাধিকার এবং সৃষ্টিশীলতাকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের কার্নিভ্যাল হলে আয়োজিত ব্র্যাক ব্যাংক-সমকাল সাহিত্য পুরস্কার ২০১৯-২০ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে  তিনি এ কথা বলেন।

 

দৈনিক সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে টাইমস মিডিয়া লিমিটেডের এমডি ও দৈনিক সমকালের প্রকাশক একে আজাদ এবং ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি অ্যান্ড সিইও সেলিম আরএফ হোসেন বক্তব্য রাখেন।  ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, সাহিত্য সমাজ ও রাষ্ট্রের ইতিহাস ও ঐতিহ্য সংরক্ষণ করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ সর্বক্ষেত্রে বিস্ময় সৃষ্টি করেছে। তাই এ কল্যাণকর রাষ্ট্রের মৌলিকতা ও সৃজনশীলতা রক্ষায় সাহিত্যচর্চা একান্ত আবশ্যক বলে অভিমত ব্যক্ত করেন স্পিকার।  

 

তিনি বলেন, শিল্প সাহিত্যের প্রতি অগাধ ভালোবাসা থেকেই বঙ্গবন্ধু অসমাপ্ত আত্মজীবনী, আমার দেখা নয়াচীন ও কারাগারের রোজনামচা নামক আত্মজীবনী রচনা করে গেছেন। যে গুলো ইতিহাসের অনেক অজানা তথ্য ও অমূল্য সম্পদ হিসেবে সাক্ষ্য দেয়। শিল্প সাহিত্য একটি জাতির পরিচয় বহন করে, বঙ্গবন্ধু সে সম্পর্কে অবগত ছিলেন।  ব্র্যাক ব্যাংক-সমকাল সাহিত্য পুরস্কার-২০১৯-২০ প্রদান অনুষ্ঠানে ২০১৯ ও ২০২০ সালের তিন জন করে মোট ছয়জন বিজয়ী স্পিকারের নিকট হতে পুরস্কার গ্রহণ করেন।

 

উল্লেখ্য, প্রবন্ধ, আত্মজীবনী, ভ্রমণ ও অনুবাদ, কবিতা ও কথাসাহিত্য এবং অনুর্ধ ৪০ বছর বয়সী, তরুণ সাহিত্যিকদের জন্য হুমায়ূন আহমেদ পুরস্কার বিষয়ে ২০১৯ সাল অনুযায়ী সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, হেলাল হাফিজ ও মোজাফ্ফর হোসেন  এবং ২০২০ সাল অনুযায়ী আফসান চৌধুরী, মোহাম্মদ রফিক ও রন্জনা বিশ্বাস পুরস্কার গ্রহণ করেন। জুরি বোর্ডের সদস্য হিসেবে বরেণ্য কথাশিল্পী সেলিনা হোসেন, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষসহ অনুষ্ঠানে ব্রাক ব্যাংক, দৈনিক সমকালের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, আমন্ত্রিত বরেণ্য ও গুণী ব্যক্তিবর্গসহ সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

পুনরুত্থান/আরিফা/সাকিব/দয়া

Comments: