এ বছর সিআইপি কার্ড পেলেন ১৭৬ জন

রপ্তানি ও বাণিজ্যে অবদান রাখায় এ বছর ১শ ৭৬ জনকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বা কমার্শিয়ালি ইম্পোর্টেন্ট পারসন-সিআইপি কার্ড প্রদান করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব সিআইপি’র হাতে কার্ড তুলে দেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

 

পণ্য রপ্তানি ক্যাটাগরিতে ১৩৮ জন ব্যবসায়ী এবং পদাধিকারবলে ট্রেড ক্যাটাগরিতে ব্যবসায়ীদের শীর্ষসংগঠন এফবিসিসিআই’র ৩৮ পরিচালক রয়েছেন। যারা ২০১৮ সালে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় সিআইপি হিসেবে মনোনীত হন। এ বছর খাত হিসেবে সর্বাধিক সিআইপি কার্ড পেয়েছে তৈরি পোশাক খাত থেকে ৪১ জন। করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাবের কারণে গত দু'বছর এই কার্ড প্রদান বন্ধ ছিল।

সিআইপি কার্ড পেলেন ১৭৬ ব্যবসায়ী | শিরোনাম | বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস)

নির্বাচিত সিআইপিরা এক বছর পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবেন। সিআইপি কার্ডের মেয়াদকালীন বাংলাদেশ সচিবালয়ে প্রবেশের জন্য প্রবেশপত্র গাড়ির স্টিকার পাবেন। এছাড়া বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠান ও মিউনিসিপ্যাল আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ পাবেন। সিআইপি কার্ডধারীরা ব্যবসা সংক্রান্ত ভ্রমণে বিমান, রেল, সড়ক ও জলপথে সরকারি যানবাহনে আসন সংরক্ষণের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

 

সিআইপির ব্যবসা সংক্রান্ত কাজে বিদেশ ভ্রমণের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ভিসাপ্রাপ্তির জন্য সংশ্লিষ্ট দূতাবাসকে উদ্দেশ্য করে ‘লেটার অব ইন্ট্রুডাকশন’ ইস্যু করবে। সিআইপিরা বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ-২ ব্যবহারের সুবিধা পাবেন। সিআইপি ব্যক্তিদের স্ত্রী, পুত্র, কন্যা ও নিজের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালে কেবিন সুবিধার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

 

 

পুনরুত্থান/আরিফা/সাকিব/দয়া

Comments: