ঈদের আ‌গে ব্যাংকে গ্রাহকের ভিড়, লেন‌দেন দ্বিগুণ

Publish: 2 weeks ago ( 1430)

অনলাইন ডেস্ক

আর একদিন পর মুসলমান‌দের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা। ঈদের আ‌গে আজকেই ব্যাংকের শেষ লেন‌দেন। তাই প্র‌য়োজনীয় টাকা তুলতে ব্যাং‌কে ভিড় করছে গ্রাহ‌ক‌। সকাল থে‌কেই প্রত্যেক শাখায় ক্যাশ কাউন্টারে রয়েছে লম্বা লাইন। তবে টাকা জমা দেওয়ার চেয়ে উত্তোল‌নের চাপই বেশি লক্ষ্যকরা গেছে। সোমবার (১৯ জুলাই) রাজধানীর মতিঝিল ও দিলকুশা, দৈ‌নিক বাংলা, পল্টনসহ বি‌ভিন্ন এলাকার ব্যাংকের শাখাগুলো ঘু‌রে ‌দেখা গে‌ছে এমন চিত্র। ব্যাংকগুলোতে সকাল থে‌কেই ব্যাং‌কের শাখাগু‌লো‌র ক্যাশ ও জমা কাউন্টারে সামনে লম্বা লাইন। পাশাপা‌শি বি‌ভিন্ন চালানপত্র, ডি‌পো‌জিট, সঞ্চয়পত্রসহ বি‌ভিন্ন সেবার বিল জমা দেওয়ার লাইনও লক্ষ্যকরা গে‌ছে। এদিকে অতিরিক্ত গ্রাহকের চাপে ব্যাংকের ক্যাশ কাউন্টারের কর্মকর্তাদের বেশ চাপ মোকাবিলা করতে দেখা গেছে।বেসরকারি এক্সিম ব্যাংকের মতিঝিল শাখার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আজহার উদ্দিন ঢাকা পোস্টকে জানান, ঈদের আগে আজকে শেষ কর্মদিবস। সকাল থেকেই গ্রাহকের চাপ রয়েছে। স্বাভাবিক দিনের চেয়ে দ্বিগুণ লেনদেন হচ্ছে, এর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক লেনদেনই বেশি।তিনি জানান, আজকে শিল্প কারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। তাই বেতন-ভাতা পরিশোধ করার জন্য অনেকে টাকা উত্তোলন করেছে। পাশাপাশি সাধারণ গ্রাহকরাও প্রয়োজনীয় টাকা তুলেছে। সব মিলিয়ে সকাল থেকেই চাপ রয়েছে ব‌লে জানান এ কর্মকর্তা।ম‌তি‌ঝিল সোনালী ব্যাংকের লোকাল অফিসের কর্মকর্তা মোহাম্মাদ পারভেজ জানান, ঈদের আগে শেষ কর্মদিবসে সব সময় গ্রাহকের ভিড় থাকে। এজন্য আগে থেকেই আমাদের প্রস্তুতি ছিল। আজকে সকাল থেকে গ্রাহ‌কের ভিড়, তাদের বেশিরভাগই টাকা তুলছে। তবে নগদ টাকার কোনো সংকট নেই। গ্রাহকরা চাহিদা অনুযায়ী টাকা উ‌ত্তোলন কর‌তে পারছে। কোনো সমস্যা হচ্ছে না।তিনি বলেন, গ্রাহ‌কদের চা‌পে সেবা দিতে কর্মকর্তাদের একটু বেগ পেতে হচ্ছে, তারপরও যথাসম্ভব করোনার যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করে আমরা সেবা দিচ্ছি।মতিঝিল ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের টাকা তুলতে আসা রাকিবুল হাসান জানান, পোশাক কারখানায় আছি। আজকে একটি পে অর্ডার ছিল তুলতে এসেছি। সাড়ে ১২টার দিকে এসেছি ১টা বাজে। এখনো সিরিয়াল আসেনি। এখনো আমার আগে আরও ১৩ জন আছে। ভালোই সময় লাগবে মনে হচ্ছে।ঈদুল আজহার আগে করোনার প্রতিরোধে চলমান বিধিনিষেধ শিথিল করেছে সরকার। এসময় লেনদেনের নতুন সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছে। সেই অনুযায়ী ১৫, ১৮ ও ১৯ জুলাই (বৃহস্পতিবার, রোববার ও সোমবার) ব্যাংকের লেনদেন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। লেনদেন-পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ করার জন্য ব্যাংক খোলা থাকবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। এছাড়া ঈদের আগের দিন মঙ্গলবার (২০ জুলাই) শিল্প এলাকায় ব্যাংক সীমিত আকারে খোলা থাকবে। রাজধানীর ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পশুর হা‌ট সংলগ্ন ব্যাং‌কের শাখায় বিশেষ ব্যবস্থায় ঈদের আগের দুই দিন রাত ৮ টা পর্যন্ত ব্যাংক কার্যক্রম চালু রাখার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। পাশাপাশি পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করে কোরবানির পশুর হাটে অস্থায়ী বুথ স্থাপন করতে বলেছে আর্থিক খাতের এ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

Comments: